নতুন ল্যাপটপ কেনার আগে যে ১০টি বিষয় খেয়াল রাখতে হবে।

tech bangla blog

নতুন ল্যাপটপ কেনার আগে যে বিষয়গুলো খেয়াল রাখতে হয় তা অনেকেই জানেন না। আমার আজকে এই বিষয় নিয়ে পোষ্ট। অনেক ফোরম, ব্লগ বা সামাজিক যোগাযোগে একটি কথা শোনা যায় কোন ল্যাপটপটি সব থেকে ভালো। কোন কোন কনফিগারেশনের ল্যাপটপ কেনা যায়। এখন বাজরে বিভন্ন ধরনের ল্যাপটপ আছে এককটি ল্যাপটপের কনফিগারেশন এবং দাম একক রকম। প্রিয় টেক বাংলা ব্লগ এর পাঠকগণ আসুন আমরা জেনেনেই নতুন ল্যাপটপ কেনার আগে কি কি খেয়াল রাখা দরকারঃ-

১। ব্রান্ড: নতুন ল্যাপটপ কেনার আগে খেয়াল করবেন ব্রান্ড নিয়ে। কারণ আপনি প্রতিদিন ল্যাপটপ কিনবেন না তাই দেখে শুনে ও বুঝে ল্যাপটপ কিনবেন। আমাদের দেশে অনেক ভালো ব্রান্ডের ল্যাপটপ পাওয়া যায়। যেমন- ডেল ল্যাপটপ, স্যামসাং ল্যাপটপ, লেনেভো ল্যাপটপ ইত্যাদি। তাই এই ব্রান্ডগুলোর মধ্যে খুঁজুন।

২। আকারঃ আকার অনেকটা মুখ্য বিষয় হয়ে দাড়ায় বিশেষ করে নোটবুক সব থেকে ভালো। আর নোটবুক কেনার আগে অবশ্যই ওজন দেখে নেওয়াটা খুবই ভালো। ল্যাপটপ যত সরু এবং হালকা হতে ততই ভালো। বিশেষ করে ল্যাপটপের সাইজ ১২.৫-১৩.৩ এর মধ্যে থাকে সেগুলোর ওজন ১ থেকে ১.৫ কেজির মধ্যে থাকে। ৩০-৩৫ হাজার টাকার মধ্যে আল্ট্রাবুক পাবেন না। সাধারণত ষ্ট্যান্ডার সাইজের ল্যাপটপ ১৫.৬ ইঞ্চি স্ক্রিনের ল্যাপটপ আদর্শ সাইজের নোটবুক। তাই এই সাইজের মধ্যে ল্যাপটপ কিনুন।     

৩। স্ক্রিন সাইজ ও মানঃ সাধারণত ১৯২০x১০৮০ পিক্সেল এর স্ক্রিন সকল কাজের জন্য আদর্শ বিবেচনা করা হয়ে থাকে। স্ক্রিনের সাইজ ও মান যদি ভালো না হয় তা হলে ব্যবহার করে মজা পাবেন না। আপনার চোঁখেও সমস্যা হতে পারে। কারণ আপনি যখন ল্যাপটপ ব্যবহার করবেন তখন ল্যাপটপের স্ক্রিনের দেকে তাকিয়ে থাকতে হবে। আপনি যখন গ্রাফিক্স বা এডিটিং আর কাজ করবেন তখন স্ক্রিনের সাইজ এবং মান এই দুইটিই কাজে আসবে, তাই এগুলো দেখে শুনে কেনা দারকার।

৪। ওয়্যারলেস কানেকশন এবং ব্লুটুথঃ এখন প্রায় এলাকায় ব্রন্ডব্যান্ড লাইন এবং ওয়াই ফাই লাইন ডুকে গিছে। তাই ওয়াই ফাই অ্যাডাপ্টরের ক্ষমতা দেখে ল্যাপটপ কেনা উচিত। বর্তমানে ব্লুটুথের ক্ষেত্রে বাজারে ৪.০ ব্লুটুথ সব থেকে ভালো।

৫। কিবোর্ডঃ আপনি স্বাচ্ছন্দ্যে যে কিবোর্ড ব্যবহার করতে পারবেন সেই সকল ল্যাপটপ কেনা উচিত। রাত্রে বা অন্ধকারে কিবোর্ডের লাইট জ্বলে কিনা তা দেখে নিন। ল্যাপটপ যে দিনের বেলায় ব্যাবহার করতে হবে তার কোন মানে নেই। সন্ধা বা রাত্রেও ল্যাপটপ ব্যবহার করা লাগতে পারে।  আজকাল মাঝারি দামের ল্যাপটপের কিবোর্ডে লাইট জ্বলে এগুলোও পাওয়া যায়। তাই কেনার আগে অবশ্যই এই বিষয়টি খেয়াল রাখতে হবে।

৬। সিপিইউ এবং গ্রাফিক্সঃ এখন ইন্টেল কোর আই সিরিজের প্রসেসর বাজারে চলছে। কোর আই প্রসেসর এর কারণে অনেক ধরনের কাজ একসাথে করা যায়। বর্তমানে ৫ম জেনারেশনের কোর আই ৭ এর ল্যাপটপ খুব জনপ্রিয় তাই এই কনফিগারেশন কিনতে পারেন। আর যদি আপনার মাঝারি বাজেট হয়ে থাকে তাহলে ৩য় জেনারেশনের প্রসেসরের ল্যাপটপ কিনতে পারেন। এই জেনারেশনও খুব ভালো। আর এখন যদি গ্রাফিক্সের কথায় আসেন তাহলে মোটামুটি বাজেটের মধ্যে এনভিডিয়া জিটিএক্স ১০৫০ থেকে শুরু করে ১০৮০ (উচ্চমূল্যের) বা আরও আধুনিক কোনো গ্রাফিক্স কার্ড যুক্ত ল্যাপটপ নিতে পারেন। আর যদি একটু বেশি বাজেট থাতে তাহলে আসুস আরওজি জেফ্রাস এর গ্রাফিক্স নিতে পারেন। এতে আপনি হাই কোয়ালিটির গেমস সাচ্ছন্দে খেলতে পারবেন।

৭। র‌্যাম: ল্যাপটপ কেনার আগে অবশ্যই আপনাকে যে বিষয়ের উপর নজর দিতে হবে সেটি হচ্ছে, র‌্যাম। অবশ্যই র‌্যাম হতে হবে কমপক্ষে ৪জিবি। আর যদি সম্ভব হয় তাহলে ৪জিবির উপর নিতে পারেন ফলে ল্যাপটপটি আরও গতিতে চালতে পারবেন।

৮। হার্ডডিক্স ড্রাইভ: হার্ডডিক্স যত বেশি হবে ডেটা বা তথ্য বেশি রাখতে পারবেন রাখতে পারনে। বর্তমানে এখন হার্ডডিক্স টেরাবাইটে আছে। কিছুদিন আগেও ৫০০ জিবি খুব বেশি প্রচলন ছিল কিন্তু এখন টেরাবাইটে ল্যাপটপে পাবেন। তাই আমি বলব হার্ডডিক্সটি অবশ্যই বেশি নিয়ে নিবেন যাতে করে যায়গা নিয়ে কোন সমস্যা যেন না হয়।

৮। ব্যাটারিঃ ল্যাপটপ মূলত বেশি জনপ্রিয় হওয়ার কারণ হচ্ছে, সহজেই বহন যোগ্য এবং বিদ্যুৎ ছাড়াও ৪/৫ ঘন্টা ব্যবহার করা যায়। তাই ল্যাপটপ কেনার আগে অবশ্যই বেটারীর এম্পিয়ার দেখে কেনা উচিত। ল্যাপটপের গায়ে এবং বক্সের সাথে কত এম্পিয়ার তা লেখা থাকে। যদি ল্যাপটপের বক্সের সাথে 44Wh বা 50Wh লেখা থাকে সেগুলো বেশি সময় ধরে চার্জ় সংরক্ষণ করতে পারে। এই ধরনের ব্যাটারী কিনতে পারেন তাহলে ৮ ঘন্টা প্রযোন্ত ব্যাকাপ দিতে পারে।   

৯। ইউএসবি ৩.০: ইউএসবি পোর্ট ৩ দেখে কিনুন। আগের ২ এর তুলনায় ৩.০ অনেক ভালো। ইউএসবি ৩.০ দ্রুত ডেটা ট্রান্সফার করতে পারে। তাই এই বিষয়টিও কিন্তু খুব গুরুত্বপূর্ণ।

১০। ফুল সাইজের এসডি কার্ড পোর্টঃ অনেক সময় ল্যাপটপে এসডি কার্ড লাগানোর দরকার হয়ে পড়ে। তাই ল্যাপটপ কেনার আগে অবশ্যই এসডি কার্ডের স্লট আছে কিনা তা অবশ্যই দেখে কেনা প্রয়োজন।

প্রিয় Tech Bangla Blog এর টিউনার এবং ভিজিটরগণ আমার এই পোষ্টটি আপনাদের কেমন লাগল তা অবশ্যই জানাবেন। আর যদি আমার এই পোষ্টটি আপনারে ভালো লেগে থাকে তাহলে নিয়োমিত টেক ব্লগ এর সাথে থাকুন। সবাইকে ধন্যবাদ জানিয়ে আমি আমার পোষ্টটি শেষ করছি। আর যদি ভালো লেগে থাকে তাহলে ঘুরে আসতে পারেন আমার ব্লগ৭১.কম সাইট থেকে।

1 comment